কন্টেন্ট রাইটিং এর সবচাইতে সহজ কিন্তু গুরুত্ববহ বিষয়

এ পর্যন্ত যত জন রাইটারের সাথে কন্টেন্ট রাইটিং নিয়ে কাজ করেছি তাদের ভেতর নতুন রাইটার ছিলেন অনেকেই।তো নতুন-পুরাতন রাইটারদের ক্ষেত্রে একটা বিষয় লক্ষ্য করেছি।আর তা হল, জটিল আর যৌগিক বাক্যের ব্যবহার।ইংরেজিতে যাকে বলে কমপ্লেক্স আর কম্পাউন্ড সেন্টেন্সের ব্যবহার।কমপ্লেক্স সেন্টেন্স ব্যবহার করলেই আপনার লেখা সুন্দর হয়ে যাবে এ ধারণা ভুল।এখানে ২ টা বিষয়ঃ

content-writing-tips
১) গঠন বা স্ট্রাকচারঃ

ওইযে বললাম, সিম্পল সেন্টেন্স বা সরল বাক্যের চাইতে জটিল আর যৌগিক বাক্যের ব্যবহার বেশি।এই বিষয়টাকেও আবার ২ টা কারণে এভয়েড করা উচিৎ বলে আমি মনে করি।ক) গুগোলের nlp বলেন বা বিং বা ডাকডাকগো- কেউই এখনো এতটা উন্নত হয়ে উঠতে পারে নি যে আপনার একের পর এক কমপ্লেক্স সেন্টেন্স বুঝে ফেলবে।এখানে সিম্পল সেন্টেন্সের গুরুত্ব অপরিসীম। আমি বলছি না এরা কমপ্লেক্স সেন্টেন্স বুঝে না। তবে একটা সিম্পল সেন্টেন্সের এন্টিটি, সেন্টিমেন্ট, ক্যাটাগরি এগুলি যত সহজে বুঝবে কমপ্লেক্স সেন্টেন্সের ক্ষেত্রে এতটা সহজে বুঝবে না।খ) আপনাকে ধরেই নিতে হবে, যারা আপনার লিখা পড়ছে এরা এলিমেন্টারি লেভেলের লিখা বুঝতে পারে।কারণ আপনি শুধুমাত্র যারা জটিল বাক্য পড়ে বুঝতে পারে তাদের জন্য লিখছেন না। আপনার কাজ সাহিত্য বা কোন রকেট সায়েন্সের থিসিস লিখা না। আপনার কাজ হল, সহজভাবে কত সুন্দর করে কত বেশি ইনফরমেশন সুন্দর কন্টেন্ট স্ট্রাকচারে পাঠককে দেয়া যায়।

২) শব্দচয়নঃ

অনেকেই ভাবেন, আপনার লেখায় ভারি ভারি শব্দ যোগ করলেই লিখাও অনেক ভাল দামি হয়ে যাবে। বিষয়টা এরকম না।সাহিত্যচর্চার ক্ষেত্রে হলে যদিও এই বিষয়টাকে ২ ভাবেই দেখে ২ দল মানুষ। কেউ বলে, ভারিক্কী কথা দিয়েও/দিয়েই সাহিত্য হয়। আবার কেউ বলে মীনক্ষোভাকুল কুবলয় না বলে মাছের তাড়নে যে পদ্ম কাঁপিতেছে, বলাই শ্রেয়।*কিন্তু কনটেন্ট রাইটিং এর ক্ষেত্রে আমার এই ৭ বছরের অভিজ্ঞতায় যা দেখেছি, সহজবোধ্য কিন্তু উপযুক্ত আর সুন্দর শব্দ ব্যবহারের চাইতে ভাল আর কিছু হতে পারে না।অর্থাৎ, শব্দচয়নের ক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখবেন, তা

  • উপযুক্ত কি না
  • সহজবোধ্য কি না
  • সুন্দর কি না

এসবের ব্যতিক্রমও দেখেছি, তবে তা খুবই কম। অর্থাৎ একেরপর এক কমপ্লেক্স সেন্টেন্স দিয়েও শুধুমাত্র অসাধারণ লেখনী শক্তি দ্বারা পাঠককে আকৃষ্ট করে রেখেছে এরকম কন্টেন্ট ও দেখেছি।কিন্তু ধরেই নিতে পারেন, আপনি সহ বাকি ৯৯ ভাগ মানুষই তাদের কাতারে পড়ি না। কাজেই তাদের ফলো না করার পক্ষপাতী আমি।আমার মন্তব্যও ফলো করার দরকার নেই, বড় বড় সব মার্কেটারই আপনাকে একই কথা বলবে।সহজবোধ্য বাক্যের মাধ্যমে ইনফরমেশন দিন আপনার পাঠককে।সহজ সহজ বাক্য দিয়ে অত্যন্ত চমৎকার লিখা লিখা যায়।

তাহলে কি কমপ্লেক্স আর কম্পাউন্ড সেন্টেন্স এভয়েড করব?

না, মোটেই না। লেখার ভেতর বৈচিত্রতার জন্য অবশ্যই ব্যবহার করবেন, তবে সেগুলিকে বিরিয়ানির মতন ব্যবহার করুন, ভাত-ডালের মতন নয়।

*বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের রচনার শিল্পগুণ।